বৃহস্পতিবার, ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০১:২০ পূর্বাহ্ন

ড্র দিয়ে বার্সার নতুন মৌসুম শুরু

খেলাধূলা ডেস্ক
  • প্রকাশের সময় : সোমবার, ১৪ আগস্ট, ২০২৩ ৩:২৯ pm

গত মৌসুমে দীর্ঘ চার বছর পর লা লিগা শিরোপা ঘরে তোলে বার্সেলোনা। কাতালান ক্লাবটি সেই শিরোপা এবার ধরে রাখতে পারবে কি-না, সেটি সময়ই বলে দেবে। তবে লা লিগার শিরোপা ধরে রাখার লক্ষ্যে শুরুটা ভালো হয়নি বার্সার। গেটাফের বিপক্ষে গোলশূন্য ড্র দিয়ে নতুন মৌসুম শুরু করেছে তারা।

গেটাফে আর বার্সেলোনা দুই দলেরই যেন গোলের চেয়ে একে অপরের ওপর চড়াও হওয়ার দিকেই বেশি মনোযোগ ছিল। গোটা ম্যাচে ১৩টি কার্ড সেটারই সাক্ষ্য দেয়। দুই দলের দুই খেলোয়াড়ের পাশাপাশি লাল কার্ড দেখেছেন বার্সা কোচ জাভি হার্নান্দেজও।

বার্সেলোনা শুরু থেকেই নিজেদের স্বভাবসুলভ বল ধরে রেখে পাসিং ফুটবল খেলছিল। প্রতিপক্ষকেও খুব একটা ওপরে ওঠার সুযোগ দেয়নি তারা। তবে এগিয়ে যাওয়ার প্রথম সুযোগ পেয়েছিল গেটাফেই। ম্যাচের চার মিনিটের মাথায় হুয়ানমি লাতাসা বার্সেলোনা গোলরক্ষক মার্ক-আন্ড্রে টের স্টেগানকে একা পেলেও জুলেস কুন্দে সজাগ থাকায় সে যাত্রায় কাতালানদের বিপদ হয়নি।

১৬ মিনিটে গোলের জন্য প্রথম সুযোগ পায় বার্সেলোনা। রাফিনহার চমৎকার ফ্রি কিক কোনোমতে ঝাঁপিয়ে ঠেকান গেটাফে গোলরক্ষক ডেভিড সোরিয়া। মিনিট দশেক পর ডি-বক্সের বাইরে থেকে ওরিওল রোমেউর নেওয়া শটও পোস্ট ঘেঁষে বেরিয়ে যায়।

৩০ মিনিটে আবারও দারুণ এক সুযোগ পেয়ে যায় গেটাফে। কিন্তু টের স্টেগান সতর্ক থাকায় হুয়ান ইগলেসিয়াস সেই সুযোগ কাজে লাগাতে পারেননি। মিনিট ছয়েক পর প্রতিপক্ষ গোলরক্ষককে একা পান রাফিনহা। তবে তার শট সোরিয়ার হাঁটুতে লেগে স্টেফান মিত্রোভিচের পা ছুঁয়ে পোস্টে লেগে বেরিয়ে যায়।

প্রথমার্ধের শেষদিকে দশজনের দলে পরিণত হয় বার্সেলোনা। ৪২ মিনিটে বলের দখল নিতে গিয়ে গেটাফের গাস্তন আলভারেজকে কনুই মেরে বসেন রাফিনহা। মিনিট চারেক আগেই রেফারির সঙ্গে বাগ্বিতণ্ডায় জড়িয়ে প্রথম হলুদ কার্ড দেখা ব্রাজিলিয়ান ফরোয়ার্ড এবার সরাসরি লাল কার্ড দেখেন।

দশজনের বার্সেলোনাকেও পেয়েও ঘরের মাঠে সুযোগটা নিতে পারেনি গেটাফে। উল্টো ৫৭ মিনিটে তারা নিজেরাও দশজনের দলে পরিণত হয়। রোনাল্ড আরাউহোকে ফাউল করে দ্বিতীয় হলুদ কার্ড দেখে মাঠ ছাড়েন গেটাফের হাইমে মাতা। ৬৩ মিনিটে লা লিগার গত মৌসুমের সর্বোচ্চ গোলদাতা রবার্ট লেভানডফস্কির সামনেও আসে গোলের সুযোগ। তবে গোললাইন থেকে আলভারেজ সেটি ফিরিয়ে দিলে পোলিশ ফরোয়ার্ডকে নিরাশ হতে হয়।

খেলোয়াড়রা যেখানে লাল কার্ড খেয়ে মাঠ ছাড়ছেন, কোচও বা সেখানে পিছিয়ে থাকবেন কেন! ৭০ মিনিটে বার্সেলোনার মরোক্কান উইঙ্গার আবদেসসামাদ এজ্জালজোওলি ফাউলের শিকার হওয়ার পর সহকারী রেফারির সঙ্গে তর্কে জড়ান জাভি। রেফারি এসে তাকে লাল কার্ড দেখালে বার্সা কোচকে বাকি ম্যাচটা বক্সে বসেই দেখতে হয়।

মিনিট পাঁচেক পর খুব কাছ থেকে পাশের জালে মেরে সুযোগ নষ্ট করেন আব্দে। বদলি হিসেবে মাঠে নামা ১৬ বছর বয়সী লামিন ইয়ামালের কাছ থেকে বল পেয়ে জালের দেখা প্রায় পেয়েই যাচ্ছিলেন আনসু ফাতি। তবে তরুণ স্প্যানিশ ফরোয়ার্ডের শট লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়।

ম্যাচের শেষদিকেও ছিল আরেক নাটকীয়তা। যোগ করা সময়ে আরাউহো গেটাফের ডি-বক্সে ইগলেসিয়াসের ট্যাকেলের শিকার হলে রেফারি বার্সেলোনার পক্ষে পেনাল্টি দিতে যাচ্ছিলেন রেফারি। তবে আক্রমণের মাঝপথে পাবলো গাভি হ্যান্ডবল করে হলুদ কার্ড দেখলে সেই পেনাল্টি নাকচ হয়ে যায়। শেষ পর্যন্ত গোলশূন্য ড্রয়ের হতাশা নিয়ে মাঠ ছাড়ে বার্সার খেলোয়াড়রা।

গেটাফের আলফোনসো পেরেজ স্টেডিয়ামে ২০১৯ সালে বার্সেলোনা সর্বশেষ জয়ের ম্বাদ পেয়েছিল। এরপর থেকে এই মাঠে জয় যেন বার্সার জন্য সোনার হরিণ। এ নিয়ে সর্বশেষ চার ম্যাচে তিনটি ড্রয়ের পাশাপাশি গেটাফের বিপক্ষে একটি হারেরও মুখ দেখেছে কাতালানরা। এই চার ম্যাচে গেটাফের জালে একবারও বল জড়াতে পারেনি বার্সা। আগামী ২০ আগস্ট কাদিজের বিপক্ষে লা লিগায় নিজেদের পরবর্তী ম্যাচে মাঠে নামবে কাতালানরা।

আরো

© All rights reserved © 2023-2024 dailybengalgazette

Developer Design Host BD