মঙ্গলবার, ০৫ মার্চ ২০২৪, ০৪:১০ পূর্বাহ্ন

পোশাক শিল্পে সহযোগিতা অব্যাহত রাখতে ইউরোপিয় ইউনিয়নের প্রতি বিজিএমইএয়ের আহবান

ডেইলী বেঙ্গল গেজেট রিপোর্ট
  • প্রকাশের সময় : বুধবার, ১৫ নভেম্বর, ২০২৩ ৪:৩২ pm

বাংলাদেশ পোশাক প্রস্তুতকারক ও রপ্তানিকারক সমিতি (বিজিএমইএ) দেশের তৈরি পোশাক শিল্পের টেকসই উন্নয়ন এবং পোশাক শ্রমিকদের আর্থ-সামাজিক অবস্থার উন্নয়নকে গুরুত্ব দিয়ে পোশাক শিল্পের অগ্রগতি আরও ত্বরান্বিত করতে ইউরোপিয় ইউনিয়নকে (ইইউ) সমর্থন ও সহযোগিতা প্রদান অব্যাহত রাখার জন্য আহবান জানিয়েছে
ইউরোপিয়ান এক্সটারনাল অ্যাকশন সার্ভিস (ইইএএস) এর এশিয়া ও প্যাসিফিক বিভাগের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (ভারপ্রাপ্ত) পাওলা পাম্পালোনি (চধড়ষধ চধসঢ়ধষড়হর) এর নেতৃত্বে একটি প্রতিনিধিদলের সঙ্গে বৈঠককালে বিজিএমইএ সভাপতি ফারুক হাসান এ আহবান জানান।

ইইএএস, ডাইরেক্টরেট-জেনারেল ফর ট্রেড এবং ডাইরেক্টরেট-জেনারেল ফর এমপ্লয়মেন্ট, সোশ্যাল অ্যাফেয়ার্স অ্যান্ড ইনক্লুশন এর প্রতিনিধিদের সমন্বয়ে গঠিত প্রতিনিধিদলটি বাংলাদেশের পোশাক শিল্পের জটিল ইস্যুগুলো নিয়ে আলোচনা করেন।
প্রসঙ্গত উল্লেখ্য যে, এই প্রথম ইইউ থেকে উচ্চ পর্যায়ের কোনো প্রতিনিধিদল বিজিএমইএ পরিদর্শন করল।

শিল্পের অগ্রগতির উপর আলোকপাত করে বিজিএমইএ সভাপতি ফারুক হাসান শিল্পে কর্মক্ষেত্রে নিরাপত্তা, সবুজ প্রবৃদ্ধি, শ্রমিকদের অধিকার এবং সাম্প্রতিক শ্রম আইন সংস্কারের উল্লেখ করে শিল্পের সামগ্রিক বিষয়ে একটি সংক্ষিপ্ত বিবরণ দেন।
তিনি আইন সংশোধনের মাধ্যমে শ্রমিকদের অধিকারগুলো বাড়াতে সরকারের প্রতিশ্রুতিও তুলে ধরেন।

ফারুক হাসান সাম্প্রতিক সময়ে বাংলাদেশের পোশাক শ্রমিকদের ন্যূনতম মজুরিতে উল্লেখযোগ্য বৃদ্ধির প্রতিও ইউরোপিয় প্রতিনিধিদলের দৃষ্টি আকর্ষণ করেন। নতুন মজুরি কাঠামোতে ৭ম গ্রেডের কর্মীদের জন্য মোট ন্যূনতম মাসিক মজুরি ৫৬.২৫% বৃদ্ধি করে ১২,৫০০ টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে, যা প্রায় ১১৩,৬৩ মার্কিন ডলারের সমান। নতুন মজুরি কাঠামোতে মূল মজুরি (বেসিক ওয়েজ) ৬৩.৪১% বৃদ্ধি করা হয়েছে।

বিজিএমইএ সভাপতি বলেন, বৈশ্বিক অর্থনৈতিক চ্যালেঞ্জ থাকা স্বত্ত্বেও ন্যূনতম মজুরি বৃদ্ধির মাধ্যমে শ্রমিকদের জীবনযাত্রার মানের উন্নয়ন ঘটাতে শিল্পের দৃঢ় সংকল্পেরই বহিঃপ্রকাশ ঘটেছে।

তিনি শ্রমিকদের জন্য শোভন জীবনমান নিশ্চিত করতে শিল্পের দৃঢ় প্রতিশ্রুতি তুলে ধরেন এবং ব্র্যান্ড এবং ক্রেতাদের নতুন ন্যূনতম মজুরি বাস্তবায়নে সক্রিয়ভাবে সহযোগিতা করার জন্যও আহবান জানান।

ইইউ এর অতুলনীয় ঐকান্তিক সহযোগিতার জন্য ধন্যবাদ জানিয়ে বিজিএমইএ সভাপতি ফারুক হাসান বলেন, বাংলাদেশের পোশাক শিল্পের সাফল্যে ইইউ গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছে, বিশেষ করে এভরিথিং বাট আর্মস (ইবিএ) স্কিমের অধীনে প্রদত্ত বাজার সুবিধা শিল্পে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ন ভ’মিকা রাখছে।

তিনি বাংলাদেশের এলডিসি গ্র্যাজুয়েশন নির্বিঘ্ন রাখতে ইউরোপিয় ইউনিয়নকে জিএসপি (ইবিএ) এর ট্রানজিশন পিরিয়ড ৩ বছর থেকে এখন ৬ বছর বাড়ানোর বিষয়টি বিবেচনা করার জন্য আহবান জানান।
তিনি বাংলাদেশের এলডিসি গ্রাজুয়েশনের পর জিএসপি প্লাস থেকে সুফল পেতে বাংলাদেশের প্রতি ইইউ’কে সমর্থন প্রদানের জন্যও আহবান জানান।

তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন যে অর্থনৈতিক সমৃদ্ধিতে পোশাকখাতের গুরুত্বপূর্ন অবদান বিবেচনায় রেখে এ খাতের প্রতি ইইউ এর সমর্থন ও সহযোগিতা প্রদান ভবিষ্যতেও অব্যাহত থাকবে।

প্রতিনিধিদলে ছিলেন মনিকা বাইলাইট, ডেপুটি হেড অফ ডিভিশন, এশিয়া এন্ড প্যাসিফিক – সাউথ এশিয়া, ইইএএস; মার্টেন ওয়েস্টরুপ, ইইএএস ট্রেড কোঅর্ডিনেটর, গ্লোবাল. জিআই.১ – ট্রেড, ইইএএস; এলিনা বোইসিউক, ডেপুটি হেড অব ইউনিট, ডাইরেক্টরেট-জেনারেল ফর ট্রেড (ডিজি ট্রেড), ইউরোপিয় কমিশন; আলেসান্দ্রো টোনোলি, পলিসি অফিসার, ডাইরেক্টরেট-জেনারেল ফর ট্রেড (ডিজি ট্রেড), ইউরোপিয়ান কমিশন এবং লরা কোরাডো, হেড অব ইউনিট, ইন্টারন্যাশনাল অ্যাফেয়ার্স, ইটিএফ, ডাইরেক্টরেট-জেনারেল ফর এমপ্লয়মেন্ট, সোশ্যাল অ্যাফেয়ার্স অ্যান্ড ইনক্লুশন (ডিজি ইএমপিএল)।
১৪ নভেম্বর ২০২৩ ঢাকায় বিজিএমইএ কমপ্লেক্সে বাংলাদেশে ইউরোপিয় ইউনিয়নের রাষ্ট্রদূত ও প্রতিনিধিদলের প্রধান, চার্লস হোয়াইটলি; ডেপুটি হেড অফ ডেলিগেশন, ড. বার্ন্ড স্প্যানিয়ার এবং ট্রেড কাউন্সেলর, আবু সৈয়দ বেলাল বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন।

বৈঠকে আরও উপস্থিত ছিলেন বিজিএমইএ এর সহ-সভাপতি শহিদউল্লাহ আজিম, সহ-সভাপতি (অর্থ) খন্দকার রফিকুল ইসলাম, সহ-সভাপতি মোঃ নাসির উদ্দিন, পরিচালক আসিফ আশরাফ, পরিচালক ফয়সাল সামাদ, পরিচালক হারুন অর রশিদ, পরিচালক ব্যারিস্টার ভিদিয়া অমৃত খান ও পরিচালক নীলা হোসনে আরা।

আরো

© All rights reserved © 2023-2024 dailybengalgazette

Developer Design Host BD