রবিবার, ১৬ জুন ২০২৪, ০৩:৩৭ অপরাহ্ন

যুদ্ধবিরতির অপেক্ষায় গাজাবাসী

ডেইলী বেঙ্গল গেজেট রিপোর্ট
  • প্রকাশের সময় : মঙ্গলবার, ৬ ফেব্রুয়ারী, ২০২৪ ১১:০২ pm

 

ইসরায়েলের অব্যাহত বোমা হামলা, খাদ্য ও জ্বালানির তীব্র সংকট, প্রচণ্ড শীতে শরণার্থী শিবিরে অবস্থান, বিশুদ্ধ পানির অভাবসহ নানা বিরূপ পরিস্থিতির মধ্যে গাজার বাসিন্দারা একটি যুদ্ধবিরতির জন্য অপেক্ষায় আছেন। এ নিয়ে যুক্তরাষ্ট্র বেশ কিছুদিন ধরে আলোচনা চালিয়ে গেলেও তাতে কোনো সিদ্ধান্ত আসছে না। দুই পক্ষের মধ্যে মতভেদ থেকে যাচ্ছে। ইসরায়েল বলছে, সব জিম্মি মুক্তির বিনিময়ে তারা দুই মাসের যুদ্ধবিরতিতে রাজি। অন্যদিকে হামাসের দাবি, সব জিম্মিকে তারা তখনই মুক্ত করবে, যখন স্থায়ী যুদ্ধবিরতি হবে। এ অবস্থায় যুদ্ধ শুরুর পর পঞ্চম দফায় মধ্যপ্রাচ্য সফর করছেন মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্টনি ব্লিংকেন।

 

নিউইয়র্ক টাইমস জানায়, লোহিত সাগরে হুতির হামলা ও যুক্তরাষ্ট্রের পাল্টা হামলাকে কেন্দ্র করে সৃষ্ট উত্তেজনা প্রশমন এবং গাজায় প্রস্তাবিত যুদ্ধবিরতি নিয়ে আলোচনা করতে ব্লিংকেন আবারও মধ্যপ্রাচ্য সফরে গেছেন। মঙ্গলবার তিনি মিসর ও কাতারের নেতাদের সঙ্গে বৈঠক করেন। মিসরের রাজধানী কায়রোতে তিনি দেশটির প্রেসিডেন্ট আব্দেল ফাত্তাহ সিসির সঙ্গে বৈঠক করেন। পরে কাতারের দোহায় তাঁর সফর করার কথা। সেখানে কাতারের আমির শেখ তামিম বিন হামাদ আল-থানির সঙ্গে বৈঠক করবেন।

 

মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র ম্যাথিউ মিলার জানান, এরই মধ্যে সৌদি প্রিন্স মোহাম্মদ বিন সালমানের সঙ্গে বৈঠক করেছেন ব্লিংকেন। বৈঠকে গাজা যুদ্ধের অবসান কীভাবে করা যায়, তা নিয়ে আলোচনা হয়েছে। সেখানে আঞ্চলিক উত্তেজনা নিরসনের প্রসঙ্গও এসেছে। এবার ইসরায়েল ও পশ্চিমতীর সফর করবেন ব্লিংকেন। মার্কিন কর্মকর্তারা জানান, ইসরায়েল সফরকালে গাজায় বেসামরিক মানুষ হত্যা নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের উদ্বেগের কথা দেশটির সরকারকে জানাবেন ব্লিংকেন।

 

এএফপি জানায়, যুদ্ধবিরতিসহ শান্তি ফেরাতে মধ্যপ্রাচ্যে সফর করছেন ফরাসি পররাষ্ট্রমন্ত্রী স্টিফেনি সেজোর্নি। মঙ্গলবার তিনি লেবাননের রাজধানী বৈরুতে গিয়ে সেখানকার পার্লামেন্টের স্পিকার নাবিহ বারির সঙ্গে বৈঠক করেন।

 

এদিকে মঙ্গলবার ইসরায়েলের হামলায় আরও ১২৭ ফিলিস্তিনি নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন ১৪৩ জন। ৭ অক্টোবরের পর এ পর্যন্ত নিহত হয়েছেন ২৭ হাজার ৫৮৪ জন। আহত হয়েছেন ৬৬ হাজার ৯৭৮ জন। নিহতদের মধ্যে অধিকাংশই নারী ও শিশু। গাজায় খাবারের জন্য তীব্র হাহাকার দেখা দিয়েছে। দ্য গার্ডিয়ান অনলাইনে প্রকাশিত ছবিতে দেখা যায়, ময়লা কাপড় পরা রুগ্‌ণ  শিশুরা পাত্র নিয়ে রাস্তায় বের হয়েছে; তারা বিভিন্ন স্থানে লাইনে দাঁড়িয়ে ত্রাণের খাবার সংগ্রহের চেষ্টা করছে।

 

গত এক সপ্তাহে গাজার দক্ষিণাঞ্চলীয় শহর খান ইউনিস ছেড়েছেন দু্ই লাখের বেশি মানুষ। শহরটিকে লক্ষ্যে পরিণত করছে ইসরায়েল। তারা মিসরের সীমান্তের কাছের ছোট্ট শহর রাফায় আশ্রয় নিয়েছেন। এতে সেখানে জনসংখ্যা বেড়ে ১৪ লাখে পৌঁছেছে। ইসরায়েল সেখানেও মাঝেমধ্যে বিমান হামলা চালাচ্ছে।

 

মানবাধিকার সংস্থা অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল সোমবার বলেছে, বিশ্বের দৃষ্টি গাজায় নিবদ্ধ থাকায় ‘সম্পূর্ণ দায়মুক্তি’ নিয়ে অধিকৃত পশ্চিমতীরে ফিলিস্তিনিদের হত্যা করছে ইসরায়েলের সামরিক বাহিনী। সংস্থাটি ইসরায়েলের কর্মকাণ্ডের তদন্ত করতে আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালতের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে। জাতিসংঘের তথ্য অনুযায়ী গত ৭ অক্টোবরের পর থেকে পশ্চিমতীরে ৩৬০ জন নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন ৪ হাজার ২৭০ জন। আটক হয়েছেন ৬ হাজার ৮৭০ ফিলিস্তিনি।

আরো

© All rights reserved © 2023-2024 dailybengalgazette

Developer Design Host BD